বৃহস্পতিবার । নভেম্বর ১৪, ২০১৯ । । ১০:০৪ পিএম

অভিজাত রেস্তোরাঁ দ্য গ্যালারিয়া রেস্টুরেন্ট অ্যান্ড ক্যাফে

পল্লবীতে কাবাব, স্টেক আর হায়াদ্রাবাদি বিরিয়ানি

সৈনূই জুয়েল | নতুনআলো টোয়েন্টিফোর ডটকম
প্রকাশিত: 2019-10-22 20:22:05 BdST হালনাগাদ: 2019-10-22 20:48:37 BdST

Share on

মিরপুরের পল্লবীর অভিজাত রেস্তোরাঁ গ্যালারিয়া রেস্টুরেন্ট অ্যান্ড ক্যাফে। ছবি: নতুনআলো টোয়েন্টিফোর ডটকম

মিরপুরের খাবারের প্রসঙ্গ এলেই পল্লবীর নাম আসে সবার আগে। এখানকার ভোজনপ্রিয় মানুষের কাছে কাবাব কিংবা বিরিয়ানির কদর চোখে পড়ার মত। আর স্টেক যেন একেবারেই অভাবনীয় এখানে।


কিন্তু উন্নত পরিবেশ, গুণগত মান, স্বাদ আর সেবা নিশ্চিত করে এসব খাবার পাওয়া যায়- এমন রেস্তোরাঁর সংখ্যা এখানে বেশ অপ্রতুল বলা চলে। এসব অপ্রতুলতার দিক বিবেচনায় রেখে মিরপুরের পল্লবীতে গড়ে উঠেছে আধুনিক আর উন্নত পরিবেশে অভিজাত রেস্তোরাঁ দ্য গ্যালারিয়া রেস্টুরেন্ট অ্যান্ড ক্যাফে।

গ্যালারিয়া রেস্তোরাঁর লোভনীয় খাবার। ছবি: নতুনআলো টোয়েন্টিফোর ডটকম
পল্লবীর সাড়ে এগারো বাসস্ট্যান্ড সংলগ্ন সিটি ক্লাব মাঠ। মাঠের সামনের দিকে প্রধান সড়কের গা ঘেঁষা সিটি ক্লাব মার্কেট ভবন। ভবনের উত্তর-পশ্চিম অংশে রেস্তোরাঁর নিজস্ব সিঁড়ি বেয়ে তৃতীয় তলায় উঠলে দেখা মেলে পরিপাটি, ছিমছাম আর দৃষ্টিনন্দন ইন্টেরিয়র নকশায় গ্যালারিয়া রেস্টুরেন্টের অন্দরমহল।


রেস্তোরাঁর বয়স এক বছরের কিছু বেশি। কিন্তু এরই মধ্যে রেস্তোরাঁটি ভোজনরসিকদের দৃষ্টি কেড়েছে। খাবারের মান, স্বাদ আর পরিবেশনে রয়েছে মুন্সিয়ানা- বলছেন এখানে আসা ক্রেতারা। রেস্তোরাঁ ঘুরে এসে এর প্রমাণও মিলেছে।

গ্যালারিয়া রেস্তোরাঁর ভেতরের চিত্র। ছবি: নতুনআলো টোয়েন্টিফোর ডটকম
রেস্তোরাঁর পূর্ব ও পশ্চিম- এই দুইদিক খোলা। রেস্তোরাঁর পূর্ব দিকে খোলা মাঠের (ফিল্ড ভিউ) চোখ জুড়ানো সবুজের হাতছানি আর পশ্চিম দিকে সড়কে (স্ট্রিট ভিউ) জনযানের ব্যস্ত ছুটে চলার নির্বাক দৃশ্য- অন্তত রেস্তোরাঁর ভেতরে কোলাহলের শব্দ খুব একটা পাওয়া যায় না।


মিরপুরে এমন অভিজাত আর নান্দনিক পরিবেশের রেস্তোরাঁ- ভোজনপ্রেমীদের যানজটে নাকাল হয়ে দূরে কোথাও যাওয়া থেকে নিস্তার দিয়েছে সত্যিই। কেননা রেস্তোরাঁর প্রায় ২০০ মেনু থেকে কারও পছন্দের মেনুটি বেছে নেয়াটা দুরূহ হবার কথা নয়।

গ্যালারিয়া রেস্তোরাঁর লোভনীয় খাবার। ছবি: নতুনআলো টোয়েন্টিফোর ডটকম
এটি একটি মাল্টি কুইজিন রেস্তোরাঁ- বলছেন উদ্যোক্তারা। মূলত থাই, চাইনিজ, মেক্সিকান এবং কন্টিনেন্টাল (উপমহাদেশীয়) খাবার থাকে রেস্তোরাঁর নিয়মিত খাবার তালিকায়।


তাছাড়া বাংলা নববর্ষসহ বিভিন্ন দেশীয় উৎসবে বর্ণাঢ্য আর মুখরোচক বাংলা খাবারের আয়োজন করা হয় এখানে।

গ্যালারিয়া রেস্তোরাঁর উদ্যোক্তা ও দক্ষ কর্মীদের একাংশ। ছবি: নতুনআলো টোয়েন্টিফোর ডটকম
আবার রমজানে শুধু ইফতার আয়োজনেই সীমাবদ্ধ না থেকে গ্যালারিয়া রেস্টুরেন্ট সেহরির আয়োজনে যোগ করেছে ভিন্ন মাত্রা।


শরিফুল হাসান, এ এন এম শিবলি ও মোহাম্মদ বায়েজিদ- এ তিন উদ্যোক্তা মিলে শুরু করেন রেস্তোরাঁটি। পরে যুক্ত হন আরও দুজন- মেহেদী হাসান আরিফ ও নাজমুল আলম চৌধুরী। গত বছরের (২০১৮) ১৪ আগস্ট রেস্তোরাঁটি আনুষ্ঠানিক যাত্রা শুরু করে।

গ্যালারিয়া রেস্তোরাঁর লোভনীয় খাবার। ছবি: নতুনআলো টোয়েন্টিফোর ডটকম
রেস্তোরাঁর নানা বিষয়ে কথা হয় রেস্তোরাঁর অন্যতম অংশীদার মেহেদী হাসান আরিফের সঙ্গে। তিনি জানালেন রেস্তোরাঁর নানা তথ্য।


তিনি নতুনআলো টোয়েন্টিফোর ডটকমকে বলেন, আমরা খাবারে টেস্টিং লবন ব্যবহার করিনা। গুণগত মানের গরু ও মুরগির মাংস নিশ্চিত করি। সবজি ও অন্যান্য উপকরণসহ আমরা ভালো মানের কাঁচামাল ব্যবহার করি সব খাবারে। রান্নাঘরে পূর্ণ নিরাপত্তা ও পরিচ্ছন্নতা বজায় রেখে খাবার তৈরির সব বিষয় পুরোপুরি নিশ্চিত করে আসছি শুরু থেকেই। ক্রেতা ও গ্রাহকদের গুণগত সেবার দিকে আমরা সর্বোচ্চ অগ্রাধিকার দিয়ে থাকি। একইভাবে এখানে আসা ক্রেতাদের যে কোন অভিযোগ ও পরামর্শ স্বাদরে গ্রহণ করি। নতুন খাবার মেনু নিয়ে আমাদের পরিকল্পনা রয়েছে।

গ্যালারিয়া রেস্তোরাঁর লোভনীয় খাবার। ছবি: নতুনআলো টোয়েন্টিফোর ডটকম
বার্গারের নাম ‘প্রাক্তন স্ত্রী’
৬ প্রকারের বার্গার পাওয়া যায় গ্যালারিয়ায়। এর মধ্যে সবচেয়ে জনপ্রিয় বার্গারের নাম এক্স ওয়াইফ। এক্স ওয়াইফ খেতে গুণতে হবে ২২০ টাকা। তবে এর সঙ্গে পাওয়া যাবে পটেটো ওয়েজেস আর কোমল পানীয়। অন্যান্য বার্গার মিলবে ১৯৫ থেকে ২৯৫ টাকার মধ্যে।

গ্যালারিয়া রেস্তোরাঁর অন্যতম উদ্যোক্তা মেহেদী হাসান আরিফের বক্তব্য
মেক্সিকান সালাদে পেরি পেরি চিকেন
ইউরোপিয়ান কুইজিনের আওতায় রেস্তোরাঁর খাবার তালিকায় রয়েছে ১৫টি মেনু, যার মধ্যে সবচেয়ে জনপ্রিয় পেরি পেরি চিকেন। এর সঙ্গে থাকছে গার্লিক রাইস, মেক্সিকান সালাদ, পটেটো ওয়েজেস ও কোমল পানীয়। এটি খেতে গুণতে হবে ৩৮৫ টাকা। এছাড়া ওভেন বেইক বিফ পাস্তা পাওয়া যাবে ২৮৫ টাকায়। এখানকার চিকেন পাস্তাও বেশ জনপ্রিয়, মিলবে ২৬৫ টাকায়।

গ্যালারিয়া রেস্তোরাঁর লোভনীয় ও সুদৃশ্য পানীয়। ছবি: নতুনআলো টোয়েন্টিফোর ডটকম
আহা স্টেক!
গ্যালারিয়ায় মূলত দুই প্রকারের স্টেক পাওয়া যায়। দাম ৩৬০ টাকা থেকে ৫২০ টাকার মধ্যে। বিফ পেপার স্টেক ৫২০ টাকা, সঙ্গে থাকছে ম্যাশ পটেটো, সুট ভেজিটেবল, কোমল পানীয়। বিফ স্টেক ৪৯৫ টাকা, সঙ্গে পাওয়া যাবে বারবিকিউ সস, রোজমেরি পটেটো ও কোমল পানীয়। এছাড়াও একটি চিকেন স্টেক কম্বো রয়েছে, মিলবে ৩৬০ টাকায়। এর থাকছে ফ্রায়েড রাইস বা ম্যাশ পটেটো, ফ্রেঞ্চ ফ্রাই আর কোমল পানীয়।

গ্যালারিয়া রেস্তোরাঁর লোভনীয় খাবার। ছবি: নতুনআলো টোয়েন্টিফোর ডটকম
কাবাব কাব্য
মিরপুরের রেস্তোরাঁ অথচ কাবাব পাওয়া যাবে না তা কি করে হয়! গ্যালারিয়ায় রয়েছে ৭ প্রকারের কাবাব। এর মধ্যে বিফ শিক কাবাব ও চিকেন হাড়িয়ালি কাবাবের জনপ্রিয়তা বেশি। এগুলো পাওয়া যাবে যথাক্রমে ১৬০ ও ২২০ টাকায়। এছাড়াও রয়েছে ফিশ টিক্কা কাবাব (২৮০ টাকা) ও ফিশ হাড়িয়ালি কাবাব (৩০০ টাকা)।

গ্যালারিয়া রেস্তোরাঁর লোভনীয় খাবার। ছবি: নতুনআলো টোয়েন্টিফোর ডটকম
জিভে জল আনা হায়াদ্রাবাদি বিরিয়ানি
মিরপুরের পল্লবীতে যেসব রেস্তোরাঁ রয়েছে, সেখানে হায়াদ্রাবাদি বিরিয়ানি পাওয়া যায় না। গ্যালারিয়া সে ঘাটতি দূর করেছে। এখানে চিকেন আচারি ও বিফ আচারির সঙ্গে হায়াদ্রাবাদি মাটন বিরিয়ানি মিলবে যথাক্রমে ৩৭৫ ও ৩৯৫ টাকায়। চিকেন বা বিফ আচারি ছাড়াও সঙ্গে মিলবে রায়তা সালাদ ও কোমল পানীয়। এছাড়াও রয়েছে কাশ্মিরি বিরিয়ানি (চিকেন) সঙ্গে চিংড়ি মালাই কারি ও কোমল পানীয়সহ। গুণতে হবে ৩৬০ টাকা।


এছাড়া এখানকার মেক্সিকান পিৎজা, রেইনবো ফালুদা, লেমনেড বেশ জনপ্রিয়। ১৮৭টি মেনু থেকে এমন অনেক পছন্দের সুস্বাদু আর মুখরোচক খাবার সহজেই বেছে নেয়া যায়।

গ্যালারিয়া রেস্তোরাঁর লোভনীয় খাবার। ছবি: নতুনআলো টোয়েন্টিফোর ডটকম
হ্যাপি আওয়ার: কম দামে জমপেশ খাবার
শনি থেকে বৃহস্পতিবার দুপুর ১২টা থেকে বিকাল ৪টা পর্যন্ত সময়ে ৩টি সেট মেনুসহ ৫টি মেনু মিলবে ৩০ শতাংশ কম দামে। গ্যালারিয়ার এ আয়োজন যে কোন ভোজনরসিকের জন্য যেন খানিকটা স্বস্তির। এই অফারের আওতায় চিকেন ফ্রায়েড রাইস, চিকেন ফ্রাই, মিক্সড সবজি ও কোমল পানীয় পাওয়া যাচ্ছে ২৬৫ টাকার পরিবর্তে ১৮৫ টাকায়। আরেকটি সেট মেনু, যাতে রয়েছে চিকেন ফ্রায়েড রাইস, মাসালা চিকেন, ফ্রায়েড প্রন- পাওয়া যাচ্ছে ২৭০ টাকার পরিবর্তে ১৯০ টাকায়। আরেকটি সেট মেনু পাওয়া যাচ্ছে ২৫০ টাকার পরিবর্তে ১৭৫ টাকায়। ২১০ টাকার বার্গার একটি কিনলে আরেকটি পাওয়া যাচ্ছে বিনামূল্যে। আর ২২৫ টাকার স্প্যাগেটি কারবোনারা মিলছে ১৬০ টাকায়। এ সুযোগ চলবে পুরো বছরজুড়ে। এ বছরের ৩১ ডিসেম্বর পর্যন্ত।

গ্যালারিয়া রেস্তোরাঁর লোভনীয় খাবার। ছবি: নতুনআলো টোয়েন্টিফোর ডটকম
ঝাঁ-চকচকে ও আধুনিক ইন্টেরিয়র নকশায় রেস্তোরাঁর ভেতরের পরিবেশ এখানকার খাবার পরিবেশনের সঙ্গে রুচিশৈলীর পরিপূরক, তার জানান দেয়। রেস্তোরাঁর ধারণ ক্ষমতা ৮২ জনের।

গ্যালারিয়া রেস্তোরাঁর লোভনীয় খাবার। ছবি: নতুনআলো টোয়েন্টিফোর ডটকম
মেহেদী হাসান বলেন, জন্মদিনের অনুষ্ঠান, অফিস পার্টিসহ যেকোন সামাজিক অনুষ্ঠানে বুকিং দেয়া যায় রেস্তোরাঁর ধারণ ক্ষমতা বিবেচনায় রেখে। এর জন্য স্পেস বা হল বাবদ কোন বাড়তি খরচের ঝামেলা নেই।

গ্যালারিয়া রেস্তোরাঁর লোভনীয় খাবার। ছবি: নতুনআলো টোয়েন্টিফোর ডটকম
চার জন শেফসহ রেস্তোরাঁর মোট কর্মী ২৫ জন। বছরের ৩৬৫ দিনই খোলা থাকে রেস্তোরাঁটি। ২৫শ’ বর্গফুট আয়তনের এ রেস্তোরাঁ খোলা থাকে প্রতিদিন সকাল ১১টা থেকে রাত সাড়ে ১০টা পর্যন্ত। যে কেউ চাইলে রেস্তোরাঁর রান্নাঘরও ঘুরে দেখতে পারেন।

গ্যালারিয়া রেস্তোরাঁর লোভনীয় খাবার। ছবি: নতুনআলো টোয়েন্টিফোর ডটকম
ফিল্ড ভিউ ও স্ট্রিট ভিউযুক্ত পল্লবীর অভিজাত রেস্তোরাঁ গ্যালারিয়ায় আগামিতে যুক্ত হচ্ছে রুফটপ- ভোজনপ্রিয় মানুষের জন্য এটি আরেকটি ভালো খবর।



  • সর্বশেষ খবর
  • সর্বাধিক পঠিত
  • নির্বাচিত