শুক্রবার । জুন ২১, ২০১৯ । । ০৪:০৮ এম

গালা মেকওভার স্টুডিও অ্যান্ড স্যালন

গালার গুণে মুগ্ধতার মেলা

জীবনযাপন প্রতিবেদক | নতুনআলো টোয়েন্টিফোর ডটকম
প্রকাশিত: 2018-10-03 13:27:55 BdST হালনাগাদ: 2018-11-27 19:49:29 BdST

বয়স এক বছরও পেরোয়নি। তবুও মুগ্ধতাভরা হাজার জোড়া চোখ এসে থামতে হয় ওখানে। এসব চোখ এখানকার গুণমুগ্ধ গ্রাহকের। তারা সবাই রূপচর্চার গ্রাহক। বলছিলাম রাজধানীর গুলশান ২ এর জনপ্রিয় অভিজাত রূপচর্চা কেন্দ্র গালা মেকওভার স্টুডিও অ্যান্ড স্যালন'র কথা।


গালা মেকওভার স্যালনের বিয়ের সাজ
গত বছরের (২০১৭) নভেম্বরে অনানুষ্ঠানিকভাবে চালু হয় গালা মেকওভার স্টুডিও অ্যান্ড স্যালন। আনুষ্ঠানিক যাত্রা শুরু হয় ডিসেম্বরে। তবে এক বছরের কম সময়ে একটি স্যালনের এমন ঈর্ষণীয় সাফল্য রীতিমত বিস্ময়কর। আর এ বিস্ময়কর সাফল্যের নেপথ্যে যিনি আছেন, তিনি জনপ্রিয় মেকআপ শিল্পী নাভিন আহমেদ। বউসাজকে যিনি নিয়ে গেছেন এক নান্দনিক উচ্চতায়। স্যালনটির আনুষ্ঠানিক পথচলার এক বছর পূর্তি হতে যাচ্ছে আসছে ডিসেম্বরে (২০১৮)।


গালা মেকওভার স্যালনের ভেতরের দৃশ্য। ছবি: নতুনআলো টোয়েন্টিফোর ডটকম
এ সাফল্যের গল্পটি নাভিন গেঁথেছেন সময়, শ্রম, মেধা আর শিক্ষা দিয়ে। আজকের এ আধুনিক আর নান্দনিক সজ্জার স্যালনটির আনুষ্ঠানিক যাত্রা শুরু করতে নাভিন বিদেশে মেকআপ বিষয়ে বিশেষায়িত ডিপ্লোমা করেছেন, দেশে ফিরে নিজের হাত পাকিয়েছেন একটু একটু করে। ধৈর্য ধরে নিজের একটি গ্রাহকমহল তৈরি করতে শ্রম দিয়েছেন দিনের পর দিন। অনেকটা সময় ব্যয় করেছেন তিনি, প্রায় ১০ বছর।


গালা মেকওভার স্যালনে মেকআপ নিয়েছেন চিত্রনায়িকা মিম
'এমনও হয়েছে এক দিনে ১৫ জন বউ সাজিয়েছি। এবারের বিয়ের সিজনে প্রায় ৫০০ বউ আমার হাতে সেজেছে। দম ফেলার এতটুকু ফুরসৎ মেলেনা। দাঁড়িয়ে দাঁড়িয়ে কাটিয়ে দিতে হয় ঘণ্টার পর ঘণ্টা। বিয়ের সিজনে আমার ব্যস্ততা মারাত্মক আঁকার ধারণ করে, যা বলে বোঝানো যাবেনা।'



নাভিনের এ কথা থেকে এটি খুব স্পষ্ট যে তিনি অত্যন্ত পরিশ্রমী, আর এটিও সহজে অনুমেয় বিয়ের কনেরা কতটা নাভিনমুখী কিংবা গালামুখী।


গালা মেকওভার স্যালনের ভেতরের চিত্র। ছবি: নতুনআলো টোয়েন্টিফোর ডটকম
যেভাবে শুরু গালা মেকওভার স্টুডিও অ্যান্ড স্যালনের
নাভিন স্কলাস্টিকা থেকে ২০০২ সালে ও' লেভেল পাশ করার পর ২০০৪ সালে পাড়ি জমান কানাডায়। টরন্টোর শেরিড্যান কলেজে কসমেটিক টেকনিক্স অ্যান্ড ম্যানেজমেন্টস বিষয়ে দুই বছরের ডিপ্লোমা সম্পন্ন করেন। তিনি ইয়র্ক বিশ্ববিদ্যালয় থেকে বিপণন (মার্কেটিং) বিভাগে ২০০৭ সালে স্নাতক সম্পন্ন করার পর দেশে ফিরে আসেন। মূল কাজের পাশাপাশি রূপচর্চা সেবা তখনো শৌখিন পর্যায়ে চলতে লাগলো, তবে এবার যোগ হল প্রাতিষ্ঠানিক জ্ঞান।


গালা মেকওভার স্যালনের বিয়ের সাজ
নাভিন বলেন, বিদেশে রূপচর্চা বিষয়ে পড়তে যাবার আগেও এ নিয়ে আমার কোন পেশাগত ভাবনা ছিলনা। এমনকি দেশে ফেরার পরও রূপচর্চাকে পূর্ণাঙ্গ পেশা হিসেবে নিতে পারিনি।


 


২০১০ সালে বিয়ের পর তিনি রূপচর্চা সেবাকে পার্টটাইম কাজ হিসেবে গুরুত্ব দিতে শুরু করেন। ক্রমেই কাজের পরিসর, গ্রাহক বাড়তে থাকে। ২০১১ সালে তিনি গালা মেকওভার নামে ফেইসবুকে একটি পেইজ খোলেন। এতেও গ্রাহকদের ভাল সাড়া পেতে থাকেন নাভিন। বর্তমানে এ পেইজের ফ্যান-ফলোয়ার ৮৮ হাজার।


গালা মেকওভার স্যালনের ভেতরের চিত্র। ছবি: নতুনআলো টোয়েন্টিফোর ডটকম
নিজের বিয়ের সাজ, বিয়ের মঞ্চ ও অন্দরমহল সজ্জার নকশা ও পরিকল্পনা করেছিলেন নাভিন নিজেই।



বনানীতে নিজ ফ্ল্যাটের একটি কক্ষে, কখনও বা গুলশানে নিজ বাসার একটি/দুটি কক্ষে, পরে গুলশান ২ এর একটি ফ্ল্যাটের পুরোটাজুড়ে ঘরোয়া পরিসরেই রূপচর্চা সেবা চালিয়ে গেছেন নাভিন।


গালা মেকওভার স্যালনের পার্টি মেকআপ
২০১৭ সালের নভেম্বর মাসে গুলশান ২ এর বর্তমান ঠিকানায় আনুষ্ঠানিক ও প্রাতিষ্ঠানিক পথচলা শুরু হয় গালা মেকওভার স্টুডিও অ্যান্ড বিউটি স্যালনের।



২২ জন দক্ষ কর্মী নিয়ে প্রায় ৩ হাজার বর্গফুট আয়তনের জায়গাজুড়ে আধুনিক সজ্জার পরিচ্ছন্ন ও পরিপাটি পরিবেশে গালা মেকওভার স্টুডিও গ্রাহকদের আস্থা ও ভালবাসায় পেয়েছে সাফল্য।


গালা মেকওভার স্যালনের ভেতরের চিত্র। ছবি: নতুনআলো টোয়েন্টিফোর ডটকম
নাভিন বলেন, শেরিড্যান কলেজে রূপচর্চা বিষয়ে পড়তে যাওয়ার ব্যাপারটা আমার জন্য অনেক বড় টার্নিং পয়েন্ট ছিল। কসমেটিক টেকনিক্স অ্যান্ড ম্যানেজমেন্ট'র আওতায় আমি ডার্মাটোলজি (ত্বক সংশ্লিষ্ট পড়াশোনা), মেকআপের স্পেশাল ইফেক্ট, থিয়েটার মেকআপ, মুভি মেকআপসহ নানা বিষয় পড়েছি।



এক প্রসঙ্গে নাভিন আহমেদ জানান, বাংলাদেশে রূপচর্চা খাত এগিয়েছে। তরুণ প্রজন্মের অনেক নারী উদ্যোক্তা রূপচর্চা খাতে আসছে, যুক্ত করছে আধুনিক সব আকর্ষণীয় বিন্যাস (স্টাইল)। রূপচর্চা এখন আর শুধু মেকআপনির্ভর নয়, বরং হয়ে উঠেছে নারীদের রিল্যাক্সেশন ও গ্রুমিংয়ের অন্যতম জায়গা।


গালা মেকওভার স্যালনের কেশবিন্যাস (হেয়ার স্টাইলিং)
গালা মেকওভারের বিশেষত্ব
গালা মেকওভারের বিশেষত্ব প্রসঙ্গে নাভিন আহমেদ বলেন, গালার সব কর্মীরা দক্ষ ও অভিজ্ঞ। তাদের আচরণজ্ঞান মার্জিত ও গ্রাহকবান্ধব। এখানকার পরিবেশ পরিচ্ছন্ন ও পরিপাটি। গ্রাহকদের প্রতি কর্মীরা খুব যত্নবান ও দায়িত্বশীল। আমি এ বিষয়গুলো সবসময় নিশ্চিত করি। আমাদের স্যালনের রূপচর্চা উপকরণগুলো গুণগত মানের। গ্রাহকদের চাহিদা, পছন্দ, রুচি অনুযায়ী আমরা সেবা দিয়ে থাকি। ত্বক ও চুলের ধরণ বুঝে উপযুক্ত সেবা নিশ্চিত করা হয় এখানে।



স্যালনে ব্যবহৃত রূপচর্চা উপকরণের ৫০ ভাগ দেশী ও বাকি ৫০ ভাগ বিদেশি পণ্য, জানান নাভিন আহমেদ।


গালা মেকওভার স্যালনের ভেতরের চিত্র। ছবি: নতুনআলো টোয়েন্টিফোর ডটকম
নাভিন বলেন, গুণগত মানের রূপচর্চা সেবা কিছুটা ব্যয়বহুল তো বটেই। কেননা গুণগত মানের রূপচর্চা সেবার জন্য ভাল মানের ক্যামিকেল ও কাঁচামাল ব্যবহার করতে হয়। আর সেগুলোর দামও বেশি। অনেক উপকরণ দেশে পাওয়া যায় না। আনাতে হয় দেশের বাইরে থেকে।



বিভিন্ন উৎসব উপলক্ষে ও ঋতুভিত্তিক (সিজনাল) ছাড় দিয়ে থাকে গালা মেকওভার।


গালা মেকওভার স্টুডিও অ্যান্ড স্যালনের স্বত্বাধিকারী নাভিন আহমেদ। ছবি: নতুনআলো টোয়েন্টিফোর ডটকম
গালা মেকওভার স্টুডিও অ্যান্ড স্যালনের রূপচর্চা সেবা ও খরচ
গালা মেকওভার স্টুডিও অ্যান্ড স্যালনের রূপচর্চা সেবার ধরণ ও খরচ কেমন জানতে চাইলে নাভিন আহমেদ বলেন, আমাদের এখানকার রূপচর্চা সেবার খরচ প্রতিযোগিতামূলক এবং ক্ষেত্র বিশেষে তুলনামূলকভাবে কম।



থ্রেডিং ৫০-৫০০ টাকা, ওয়াক্সিং ৬০০-৪০০০ টাকা, ফেসিয়াল ৬০০-২০০০ টাকা, ফেয়ার পলিশ/ব্লিচ ৫০০-৪০০০ টাকা, মাসাজ ৬০০-৩৫০০ টাকা, চুল পরিচর্যা (হেয়ার ট্রিটমেন্ট) ৬০০-২০০০ টাকা, চুল কাটা ২০০-১০০০ টাকা, কেশবিন্যাস (হেয়ার স্টাইলিং) ৬০০-১২০০ টাকা , কেশ রঞ্জন (হেয়ার কালার) ৩০০-৬০০০ টাকার অধিক, বিয়ের সাজসহ রূপচর্চার প্রায় সব রকম সেবা এখানে পাওয়া যায়। রিবন্ডিং ও এক্সটেনসোর খরচ চুলের দৈর্ঘ্য ও ঘনত্ব অনুযায়ী নির্ধারিত হয়।


গালা মেকওভার স্যালনের ভেতরের চিত্র। ছবি: নতুনআলো টোয়েন্টিফোর ডটকম
এছাড়া বিয়ের সাজের খরচ ১২,০০০ টাকা থেকে ৩৫,০০০ টাকা পর্যন্ত।



এক নজরে গালা মেকওভার স্টুডিও অ্যান্ড স্যালন
অবস্থান: গুলশান ২
চালুর বছর: ২০১৭
আয়তন: ৩০০০ বর্গফুট
কর্মী সংখ্যা: ২২ জন
গ্রাহক ধারণক্ষমতা: ২২ জন (একসঙ্গে)
খোলা: সকাল ১০টা থেকে রাত ৮টা (প্রতিদিন)
অনন্য (সিগনেচার) সেবা: বিয়ের সাজ, মেকআপ ও কেশবিন্যাস (হেয়ার স্টাইলিং)


 গ্রাহক সাজাতে ব্যস্ত নাভিন আহমেদ


এক নজরে নাভিন আহমেদ
২০০২: স্কলাস্টিকা থেকে ও' লেভেল সম্পন্ন করেন
২০০৪: রূপচর্চা বিষয়ে পড়াশোনার জন্য কানাডার টরন্টো যান
২০০৬: টরন্টোর শেরিড্যান কলেজে কসমেটিক টেকনিক্স অ্যান্ড ম্যানেজমেন্টস বিষয়ে দুই বছরের ডিপ্লোমা সম্পন্ন করেন
২০০৭: ইয়র্ক বিশ্ববিদ্যালয় থেকে বিপণন (মার্কেটিং) বিভাগে ২০০৭ সালে স্নাতক সম্পন্ন করেন ও দেশে ফিরে আসেন
২০০৭: নাভিন'স নামে একটি ফ্যাশন হাউজ চালু করেন, চালিয়েছেন দুই বছর
২০১০: বিকনহাউজ স্কুল সিস্টেমে শিক্ষক পদে যোগ দেন, কর্মরত ছিলেন দুই বছর। বিয়ে করেন।
২০১০: মূল পেশার পাশাপাশি রূপচর্চা সেবা নিয়ে কাজ শুরু করেন ও তা চালিয়ে যান
২০১২: মাছরাঙ্গা টেলিভিশনে সংবাদ উপস্থাপক হিসেবে যোগ দেন, কর্মরত ছিলেন দুই বছর।
২০১৪: মূল পেশা হিসেবে রূপচর্চা সেবা নিয়ে কাজ শুরু করেন
২০১৭: আনুষ্ঠানিকভাবে গালা মেকওভার স্টুডিও অ্যান্ড স্যালন চালু করেন


নিজ স্যালনে জনপ্রিয় মেকআপ শিল্পী নাভিন আহমেদ


গালা মেকওভার স্টুডিও অ্যান্ড স্যালনের ঠিকানা
বাড়ি ২বি (নিচতলা), রোড ১১৫, গুলশান ২, ঢাকা
মুঠোফোন: ০১৭৮১ ৮৩৩ ৩৩৩।